বুধবার, ২১শে জানুয়ারি, ২০২০ ইং। ৯ই মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ। ভোর ৫:০৯








প্রচ্ছদ » সারাদেশ

রাজধানীর ওয়ারীতে বউকে মারতে গিয়ে মারা গেলেন স্বামী

সারাদেশে আগের তুলনায় নারী নির্যাতরেন ঘটনা কমে গেলেও বর্তমান সরকারের কঠোর আইন উপেক্ষা করে এখনও কিছু স্বামী তাদের স্ত্রীদের ওপর নির্যাতন চালায় । এমনি একটি ঘটনা ঘটেছে রাজধানীর ওয়ারীতে ।তবে স্ত্রীকে মারতে গিয়ে নিজেই চলে গেলেন পরপারে । জানা গেছে

রাজধানীর ওয়ারীতে স্ত্রীকে মারতে গিয়ে প্রাণ হারালেন স্বামী মোহাম্মদ কোয়েল। মঙ্গলবার গভীর রাতে ওয়ারীর গোপীবাগ রেলগেট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।পুলিশ জানিয়েছে, পারিবারিক কলহের জেরে এ ঘটনা ঘটেছে। গুরুতর আহত অবস্থায় রাত ২টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। নিহত মোহাম্মদ কোয়েল (২৭) ফিলটার পানি সাপ্লাইয়ের কাজ করতেন।

ওয়ারী থানার ওসি আজিজুর রহমান জানান, কয়েক দিন আগে গ্রাম থেকে তার মা কোয়েলের বাসায় বেড়াতে আসেন। কোয়েলের স্ত্রী মাহমুদা বেগম তার (মা) সঙ্গে অব্যাহতভাবে খারাপ ব্যবহার করছিলেন। এ নিয়ে স্ত্রীর সঙ্গে কোয়েলের পারিবারিক কলহ বাড়তে থাকে।

তিনি বলেন, এর জের ধরে মঙ্গলবার রাতে স্ত্রী মাহমুদা বেগম তার স্বামী কোয়েলের মোবাইল ফোনটি ছুড়ে ফেলে দেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে মাহমুদাকে মারতে যান কোয়েল। কিন্তু কোয়েল দ্রুত ঘরের কাচের দরজা বন্ধ করে অন্য রুমে চলে যান। দরজা খুলতে না পেরে কাচের দরজায় জোরে ঘুষি মারে। এতে কাচ ভেঙে তার হাত এবং বুকে আঘাত লাগে। তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়া হলেও অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের কারণে তার মৃত্যু হয়।

এ এ নিহতের ঘটনায়  নিহতের ভাই আল আমিন বলছেন  অন্য কথা। তিনি জানান, ঝগড়াঝাঁটির একপর্যায়ে মঙ্গলবার তার ভাবি ও ভাবির ভাই সোহেল থাই গ্লাস দিয়ে কোয়েলর বুকে আঘাত করে। এতে ভাইয়ের  ‍মৃত্যু হয়েছে। নিহতের গ্রামের বাড়ি পটুয়াখালীর বাউফল থানার গুলবাগ গ্রামে। তার বাবার নাম রুহুল আমিন। চার ভাই এক বোনের মধ্যে তিনি ছিলেন দ্বিতীয়। নয় বছরের এক পুত্রসন্তানের বাবা ছিলেন নিহত কোয়েল । এ ঘটনায় কোন মামলা হয়নি ওয়ারি থানায় ।

আরও পড়ুন>>> ভালোবাসা কি
আরও পড়ুন>>> ভালোবাসার গল্প
আরও পড়ুন>>> প্রেমের গল্প