বুধবার, ২১শে জানুয়ারি, ২০২০ ইং। ৯ই মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ। ভোর ৫:০৯








প্রচ্ছদ » সারাদেশ

লাঠিপেটা করার পর শিশুর শরীর ঝলসে দেয়া হয় গরম তেল ঢেলে, আটক অভিনেত্রী!

ঘটনাটি ঘটেছে ফেনী সদর উপজেলার শর্শদি ইউনিয়নের গজারিয়াকান্দি গ্রামে। সেখানে ৫ বছরের এক শিশুর অপর চালানো হয়েছে বর্বর নির্যাতন। জানা যায় সেই শিশুটির নাম প্রিয়াংকা। সে এখন তার ক্ষত বিক্ষত শরীর নিয়ে হাসপাতালের বিছানায় খুবই কষ্টের মাঝে দিন পাড় করছে।

গত মঙ্গলবার (১৩ অক্টোবর) দুপুরে শিশুটিকে কাঁদতে দেখে জোহরা নামে এক নারী হাসপাতালে ভর্তি করেন। এ বিষয়ে জোহরা আক্তার জানান, ওই দিন দুপুরে শর্শদী ইউনিয়নের গজারিয়া কান্দি এলাকার পাঠান বাড়ি সংলগ্ন একটি সড়কে ক্ষত-বিক্ষত শরীর নিয়ে কাঁদতে দেখে তাকে বাড়ি নিয়ে যান। পরে স্বামী জাহাঙ্গীর আলমের পরামর্শে তাকে আধুনিক ফেনী সদর হাসপাতালে ভর্তি করান তারা।

প্রিয়াংকা শুধু তার নাম ও মায়ের নাম শাহিনী বলা ছাড়া আর কিছু জানাতে পারছে না। বর্তমানে শিশুটি হাসপাতালের নতুন ভবনের শিশু ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন।

বিষয়টি নিয়ে ফেনী সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) নাজমুল হাসান বলেন, শিশুটির শরীরে অসংখ্য পোড়া ক্ষত রয়েছে। তাকে উন্নত চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হচ্ছে।

এদিকে, ও ঘটনায় গৃহকর্ত্রী শাহানা আক্তারকে আটক করেছে পুলিশ।

জানা যায়, ভিকটিম প্রিয়াংকা আক্তারের বাবা-মা নেই। গৃহকর্ত্রী শাহানা আক্তার শিশুটিকে পালক আনেন। তবে পালক মেয়ে হলেও কারণে-অকারণে শিশুটির ওপর নির্যাতন চালাতেন তিনি।

প্রতিবেশী জোহরা বেগম জানান, শাহানা আক্তার বাংলা সিনেমায় পার্শ্বচরিত্রে অভিনয় করেন। ঢাকায় বসবাস করলেও গ্রামের বাড়িতে তার নিয়মিত যাতায়াত আছে।

তিনি বলেন, ‘কয়েক দিন আগে শাহানা ফেনীর বাড়িতে আসেন, প্রিয়াংকাও তার সঙ্গে আসে। সোমবার রাতে কোনো একসময় শিশুটির ওপর শাহানা নির্যাতন চালান।’

শিশুটির চিকিৎসা বিষয়ে ফেনী সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ফৌজুল কবীর বলেন, শিশুটির শারীরিক অবস্থা ভালো নয়। শরীরের বিভিন্ন জায়গা ঝলসে যাওয়ায় ওর কিডনি ঝুঁকিতে রয়েছে। উন্নত চিকিৎসার জন্য শিশুটিকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া দরকার।

আরও পড়ুন>>> ভালোবাসা কি
আরও পড়ুন>>> ভালোবাসার গল্প
আরও পড়ুন>>> প্রেমের গল্প