শনিবার, ২২শে ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং। ১০ই ফাল্গুন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ। সন্ধ্যা ৬:১৫








প্রচ্ছদ » সারাদেশ

অমানবিক নির্যাতন করে টয়লেটে ফেলে রাখছে আমার মেয়েকে!

কুমিল্লা উত্তর কালিয়াজুরির বাসিন্দা নাজমুল হাসান অপুর বাসায় কাজের জন্য সীমা (১৭) নামের মেয়েকে দেয় তার বাবা। তারা রাজধানীর টিকাটুলি এলাকায় ভাড়া থাকত। সীমার বাবা একজন কাঁচা তরকারী ব্যবসায়ী।

তাই পরিবারের খরচ সামলাতে না পেরে মেয়েকে কাজে দেন।গত ৫ অক্টেবরের ঘটনা।  সীমার বাবা জানান, সে (নাজমুল) আমার মেয়েকে নির্মমভাবে শারীরিক নির্যাতন করে। আমি আমার মেয়েকে দেখতে চাইলে নানা অজুহাতে আমার মেয়েকে দেখতে দেয়নি সে।

পরে আমি যখন খুব করে জোরাজুরি করি তখন নাজমুল আমাকে তাদের বাসার টয়লেটে নিয়ে যায়। সেখানে গিয়ে দেখি আমার মেয়েকে টয়লেটে ফেলে রাখা হয়েছে। আমার মেয়ের মুখ দিয়ে লালা পড়ছে।

এরপর আমি আমার মেয়েকে নিয়ে কুমিল্লায় চলে আসি। এমনটাই বলছিলেন, নগরীর উত্তর কালিয়াজুরি এলাকায় ভাড়া থাকা কাঁচা তরকারী ব্যবসায়ী নুরুল ইসলাম।

নুরুল ইসলাম আরও জানান, বাবা আমার মেয়ে সীমা নির্যাতন সইতে না মেরে নির্বাক হয়ে গেছে। তার হাতে-পায়ে মুখে শুধু আঘাতের চিহ্ন। ঘটনা যেন কাউকে না বলি সেজন্য হুমকিও দেয়া হয় হয়েছে। এখন সে ভয়ে কথা বলতে পারছে না।

এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক মো: আবুল ফজল মীর জানান, তাৎক্ষণিকভাবে সীমা ও তার পরিবারকে জেলা প্রশাসন থেকে যেভাবে সহযোগিতা করা যায় সে রকম ব্যবস্থা নিয়েছি। সীমা সুস্থ হওয়ার পর তার উপর যারা অত্যাচার করেছে তাদের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নেয়া হবে বলেও জানান তিনি।

 

আরও পড়ুন>>> ভালোবাসা কি
আরও পড়ুন>>> ভালোবাসার গল্প
আরও পড়ুন>>> প্রেমের গল্প