দেড় বছর পর জম্মু-কাশ্মীরে ফোর-জি ইন্টারনেট চালু

দেড় বছরেরও বেশি সময় ধরে ইন্টারনেট থেকে বিছিন্ন ছিল জম্মু ও কাশ্মীর। ৩৭০ ধারা বিলোপের প্রায় ১৮ মাস পর অবশেষে সমগ্র উপত্যকায় চালু হয়েছে ফোর-জি ইন্টারনেট পরিষেবা।

শুক্রবার (৫ ফেব্রুয়ারি) মধ্যরাত থেকেই জম্মু ও কাশ্মীরের বাসিন্দারা দ্রুত গতির ইন্টারনেট ব্যবহারের স্বাধীনতা পেতে চলেছেন বলে সরকারের এক শীর্ষ কর্মকর্তা জানিয়েছেন।

এনডিটিভি জানায়, ২০১৯ সালের ৫ আগস্ট জম্মু ও কাশ্মীরের থেকে বিশেষ মর্যাদা প্রত্যাহার করে জম্মু ও কাশ্মীর এবং লাদাখকে দুটি পৃথক কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে ভাগ করে দেয় ভারত সরকার। এই সিদ্ধান্ত নেয়ার আগেই ইন্টারনেট

পরিষেবা বন্ধ করা হয় এই উপত্যকায়। চলতি মাসের শুরুর দিকে দেশটির সুপ্রিম কোর্ট জম্মু ও কাশ্মীরের প্রশাসন ও কেন্দ্রীয় সরকারকে ফোর-জি ইন্টারনেট চালু করার সম্ভাবনা আছে কি-না তা নিয়ে সিদ্ধান্তে আসতে বলে।

পাশাপাশি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের কিছু কিছু জায়গায় দ্রুত মোবাইল ইন্টারনেট পরিষেবা ফেরানোর ব্যাপারেও দ্রুত সিদ্ধান্ত নিতে বলে দেশের সর্বোচ্চ আদালত।

বেশ কয়েকটি ক্ষেত্রে জম্মু ও কাশ্মীরের প্রশাসন উপত্যকার বেশ কয়েকটি জেলায় পরীক্ষামূলকভাবে দ্রুতগতির মোবাইল ইন্টারনেট পরিষেবা আবারও চালু করেছে। গত বছরের আগস্টে কাশ্মীর অঞ্চলের গন্দেরবল এবং জম্মু অঞ্চলের উধমপুর জেলায় দ্রুতগতির মোবাইল ইন্টারনেট পরিষেবা শুরু হয় নতুন করে। গত বছর শুরুর দিকে টু-জি ইন্টারনেট পরিষেবা চালু হয়েছিল এখানে।

এদিকে, ফোর-জি ইন্টারনেট চালুর সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন জম্মু-কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লাহ।

টুইট করে তিনি উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন। তিনি লিখেছেন, ‘ফোর-জি মোবারক! ২০১৯ সালের আগস্ট মাসের পর সমগ্র জম্মু ও কাশ্মীর ফোর-জি মোবাইল ডেটা পেতে চলেছে। বেটার লেট দ্যান নেভার।